মেম্বার পদে মো: আমির হোসেন খানের মনোনায়নপত্র দাখিল

বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৫, ২০২১

চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া উপজেলার ১নং চাকামইয়া ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার পদে আজ (২৫ নভেম্বর ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ, বৃহস্পতিবার) মনোনায়নপত্র দাখিল করেন জনাব মো: আমির হোসেন খান। সকালে তার গ্রামের বাড়িতে মনোনায়নপত্র দাখিলকে কেন্দ্র করে দোয়া মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। শত শত কর্মী-সমার্থকদের উপস্থিতিতে দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ মাওলানা মো: আবদুস সালাম। পরে একটি নির্বাচনী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ৭নং ওয়ার্ডের অন্যতম সিনিয়র বাসিন্দা জনাব মো: মোখলেসুর রহমান হাওলাদারের সভাপতিত্বে উক্ত দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও পটুয়াখালী জেলা পরিষদের সদস্য জনাব মো: ফিরোজ সিকদার।
খেপুপাড়া বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জনাব মো: আনোয়ার হোসেনের পরিচালনায় উক্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সাবেক জনপ্রিয় মেম্বার জনাব মো: নাসিরউদ্দিন হাওলাদারের ছোটভাই জনাব মো: মনির হোসেন, সাবলীল বক্তা জনাব মো: দুলাল হোসেন বাবুল এবং প্রধান শিক্ষক জনাব মো: আব্দুল মোতালেব আকন প্রমূখ। মেম্বার পদপ্রার্থী জনাব মো: আমির হোসেন খান তার নাতিদীর্ঘ বক্তৃতায় বিগত ২০১৬ সালের নির্বাচনের কারচুপির বর্ণনা দিয়ে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘গত নির্বাচনে আমাকে অন্যায়ভাবে পরাজিত করা হয়েছিল। তুমুল জনপ্রিয়তা থাকার পরেও কেবল আঞ্চলিক রাজনীতির মেরুকরণে কারণে আমাকে পরাজিত হতে হয়। সরকারি দলের গুরুত্বপূর্ণ পদে থাকার পরেও সেই নীলনকশার নির্বাচনে সকাল ১০ টার পর আমার সকল এজেন্টদের বেড় করে দেয়া হয়।তারা বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আমার ভোটারদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। সকাল ১১ টার পর আমি নির্বাচন বর্জন করলেও ৫৮০ ভোট পাই। অর্থাৎ সকাল ১১টা পর্যন্ত আমি কাস্টিং ভোটের ৯০ ভাগ পেয়েছি। এবার আমার জীবন থাকতে সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে দেয়া হবে না’ প্রধান অতিথি জনাব মো: ফিরোজ সিকদার বলেন, ‘জনাব মো: আমির হোসেন খান চাকামইয়া ইউনিয়নের কৃর্তীসন্তান। সারা উপজেলার মানুষ তাকে চিনে। তিনি একজন ব্যক্তিত্বসম্পন্ন রাজনীতিবিদ ও কলাপাড়া উপজেলার অন্যতম সেরা বক্তা। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় তিনি বারবার ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছেন। গত নির্বাচন স্থানীয় একটি প্রতিক্রিয়াশীল চক্র পেশীশক্তির দ্বারা কেন্দ্র দখল করে তার বিজয়কে ছিনিয়ে নিয়েছে। এবারের নির্বাচনে সেই ঘটনার সামান্য লক্ষণ দেখা দিলে দাঁত ভাঙা জবাব দেয়া হবে।’ তিনি জনাব মো: আমির হোসেন খানের পক্ষে সাধারণ জনগণের সমার্থন ও ভোট প্রার্থনা করেন। কেউ ভয়ভীতি দেখালে সরাসরি তার মোবাইল নম্বরে কল দিতে বলেন এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। তিনি এই নির্বাচনে জনাব মো: আমির হোসেন খানের সকল কর্মসূচিতে উপস্থিত থাকার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সমাবেশ শেষে শত শত কর্মী-সমার্থক ও এলাকার মুরুব্বিদের সাথে নিয়ে মিছিল সহকারে জনাব মো: আমির হোসেন খান উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জনাব মো: আবদুর রশিদের কাছে মনোনায়নপত্র দাখিল করেন। এসময় প্রধান শিক্ষক জনাব মো: আনোয়ার হোসেন, জনাব মো: ইয়ার আলী হাওলাদার, জনাব মো: দুলাল হোসেন বাবুল, জনাব মো: দেলোয়ার হোসেন, জনাব মো: আবু জাফর হাওলাদার এবং জনাব মো: মনির হোসেনসহ শত শত কর্মী-সমার্থক ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা উপস্থিত ছিলেন। এ উপলক্ষ্যে সাধারণ ভোটারদের মাঝে উৎসবের আমেজ লক্ষ করা যায়। তারা জনাব মো: আমির হোসেন খানের জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।