প্রকাশিত সংবাদে ঝালকাঠির ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বাশারের নিন্দা ও প্রতিবাদ

শনিবার, অক্টোবর ২, ২০২১

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ
বরিশাল থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন স্থানীয় পত্রিকায় ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে ”ঝালকাঠিতে স্বাস্থ্যকর্মীকে পেটালেন ইউপি চেয়ারম্যান” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদে আমাকে জড়িয়ে উদ্দেশ্য প্রনোধিতভাবে সমাজে হেয় প্রতিপন্নে একদল কুচক্রী মহল সংবাদকর্মীদের ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে অসাধু উদ্দেশ্য সাধনের পাঁয়তারায় চালাচ্ছে। প্রকাশিত সংবাদে আমি ( চেয়ারম্যান আবুল বাশার খান, ৭ নং পোনাবালিয়া ইউনিয়ন , ঝালকাঠি সদর) পোনাবালিয়া ইউনিয়ন পরিষদে স্বাস্থ্যকর্মীকে পিটিয়েছি বলে উল্লেখ করা হয়। যা আদৌই সত্য নয় ও ভিত্তিহীন। মূলত ঐদিন ২৮ সেপ্টেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে পোনাবালিয়া ইউনিয়ন পরিষদে ১৫০০ মানুষের মাঝে করোনা ভাইরাস থেকে সুরক্ষায় গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়। সকাল থেকে মানুষের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। আমি প্রথম থেকেই পরামর্শ দিয়েছিলাম টিকা প্রদানে দায়িত্বরত স্বাস্থ্যকর্মীরা যেন যথাযথ টিকা প্রদান কার্যক্রমের বাস্তবায়নসহ দূর-দূরান্ত থেকে আসা বৃদ্ধ- মধ্যবয়সীদের যেন কোনরুপ সমস্যা বা ভোগান্তির সম্মুখিন না হয় সেদিকে খেয়াল রাখার । পাশাপাশি তারা যেন স্বতস্ফুর্তভাবে লাইনের সিরিয়াল অনুযায়ী স্ব স্ব ব্যক্তি টিকা গ্রহণ করে পূনরায় গন্তব্যে পৌছাতে পারে। ঐদিন সকাল গড়িয়ে দুপুর হলেই আনুমানিক ২ টার পর টিকা গ্রহীতার মধ্যে একাধিক মানুষ ”টিকা প্রদানে স্বাস্থ্যকর্মী এনায়েত পক্ষপাতিত্ব-স্বজনপ্রিতি অর্থাৎ তার পরিচিত ব্যক্তিদের আগে সিরিয়ালের তোয়াক্কা না করে টিকা প্রদান করছে” বলে মৌখিক অভিযোগ করেন। এতে আমি বিষয়টি সমাধানে স্বাস্থ্যকর্মীদের কক্ষে গিয়ে জানতে চাইলে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে এনায়েত টিকা কেন্দ্র হতে চলে যায়। পরে শুনেছি এনায়েত আমার বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ এনে ঝালকাঠি সদর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। এঘটনায় আমি বেশ মর্মাহত হই। পাশাপাশি বিভিন্ন পত্রিকায় আমার বিরুদ্বে অসত্য সংবাদও প্রকাশ করে। যা আমার ও ইউনিয়নবাসীর জন্য বিব্রতকর। আমাকে সমাজে হেয় প্রতিপন্ন ও একদল স্বার্থান্বেসী মহলের অসৎ চরিতার্থে এনায়েত এমন নেতিবাচক ঘটনাটি ঘটিয়েছে। যা ভিত্তিহীন। সমাজের ইতিবাচক ব্যক্তিদের সন্মান ক্ষুন্নসহ এনায়েত বারংবারই একজন আসাধু ব্যক্তি ও তার জামায়াতে সংশ্লিস্টতা রয়েছে । ইতিপূর্বে এনায়েত নারী কেলেঙ্কারিরমত ঘটনার সুচনাও ঘটিয়েছে। এখন আমার পিছনে আমার ভাবমূর্তি ক্ষুন্নতে লিপ্ত হয়েছে। আমি ঝালকাঠি জেলা মাঠকর্মীদের প্রধান রিফাত সাহেবের কাছে অনুরোধ করেছিলাম, এনায়েত নিষিদ্ধ সংগঠন জামায়াতের সাথে সংশ্লিষ্ট পাশাপাশি তার পরিবারও জামায়াতপন্থী । আমি এনায়েতকে ইউনিয়ন পরিষদে টিকা প্রদানে অধিকাংশ দায়িত্বরত স্বাস্থ্যকর্মীই নারী হওয়ায় তাদের মাঝে দুঃশ্চরিত্র এনায়েতকে দায়িত্ব না দেয়ায়, অন্যত্র দায়িত্ব দেয়ার অনুরোধ করছিলাম। এছাড়া আমি আওয়ামী লীগ পরিবারের সন্তান। আ’লীগের একজন জনপ্রতিনিধি। সামনে নির্বাচন এই জামায়াত ঘড়ানার এনায়েতকে আমার ইউনিয়ন পরিষদে টিকা প্রদানে দায়িত্ব পালনে দিলে অহেতুক-ভিত্তিহীন ভাবে আমার ক্ষতিসাধনের চেষ্টা করতে পারে বলে শঙ্কায় ছিলাম। আমার সেই শঙ্কায়ই বাস্তবে রূপ নিয়েছে। আমার ক্ষতিসহ ইউনিয়ন পরিষদে এনায়েতকে দায়িত্ব দিতে আমি অনীহা প্রকাশ করায় পূর্বের ক্ষোভে আমার বিরুদ্বে এমন অপপ্রচার চালিয়েছে। আমি এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে বিষয়টি দেখার অনুরোধ করছি।


প্রতিবাদন্তে
আবুল বাশার খান
৭ নং পোনাবালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ,ঝালকাঠি সদর।