বাংলাদেশ, ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ১৯ মিনিট আগে
সর্বশেষ
  ||> দেবহাটা ছাত্রলীগ সভাপতি কে অপহরণ চেষ্টাকালে জনতার হাতে আটক-১  ||> স্ত্রীকে তালাকের পর দুধ দিয়ে গোসল, গ্রামে খিচুড়ি উৎসব  ||> রাজশাহীতে উপজেলা পর্যায়ে আইন সহয়তা সদস্যদের ওরিয়েন্টেশন  ||> সাতক্ষীরায় রাস্তায় ইট বা‌লি রে‌খে জনগণের চলাচলে বিঘ্ন সৃ‌ষ্টির দায়ে দুইজ‌নের কারাদণ্ড  ||> ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে জরুরী অবস্থায় সিভিল সার্জন ও আরএমও না আসায় নাগরিক ফোরামের ক্ষোভ প্রকাশ  ||> ঝালকাঠিতে শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরন  ||> ১ কোটি বাংলাদেশি মুসলিমকে ফেরত পাঠানো হবে: বিজেপি নেতা  ||> ঝালকাঠিতে বিয়ের খাবার খেয়ে অসুস্থ শতাধিক  ||> দশম বারের মতো বরিশাল রেঞ্জের শ্রেষ্ঠ সার্কেল অফিসার এম এম মাহমুদ হাসান  ||> সাংবাদিক শিমুলের ওপর হামলার ঘটনায় বিএমএসএফ'র প্রতিবাদ  ||> ফের বৃষ্টির পূর্বাভাস, আসছে শৈত্যপ্রবাহও  ||> ঝালকাঠি আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি  ||> ঝালকাঠি রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন  ||> ঝালকাঠি রাজাপুরে শীতলপাটি উন্নয়ন মূলক সমবায় সমিতির ঘরে ডিআইজির মতবিনিময় সভা  ||> যেসব বই পড়ে ডিগ্রি দেয়া হচ্ছে তা কর্মজীবনে কাজে আসছে না  ||> দেশবাংলা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম  ||> লক্ষ্মীপুরের সাংবাদিক দম্পত্তির ওপর হামলার ঘটনায় বিচার দাবি করছে বিএমএসএফ  ||> ফের কাঁপাবে শীত ঝরবে বৃষ্টি, দুঃসংবাদ আবহাওয়ার  ||> নানা অজুহাতে বাড়ছে দাম, অস্থির ভোজ্যতেলের বাজার  ||> বঙ্গবন্ধু বিপিএলের শিরোপা লড়াই আজ

Dabanol 24


ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুর প্রহর গুনছে তালতলীর শিশু সানাউল টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছে না

ডিসেম্বর ৮, ২০১৯ ১০:০৯ পূর্বাহ্ণ

ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুর প্রহর গুরছে কোমড়ে বিশাল আকৃতির টিউমার নিয়ে দুই মাসের শিশু সানাউল। শিশুটির ব্যথায় ছটফট করছে। শিশুটিকে বাঁচানোর জন্য দ্রæত চিকিৎসা প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কিন্তু টাকার অভাবে দরিদ্র বাবা রিয়াজ শরীফের পক্ষে চিকিৎসা করানো সম্ভব নয়। তাই প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সহ দেশের দানশীল ব্যাক্তিদের কাছে সহযোগীতা কামনা করেছেন বাবা রিয়াজ শরীফ ও মা শাহনাজ আক্তার। ঘটনা বরগুনার তালতলী উপজেলার পঁচাকোড়ালিয়া ইউনিয়নের মনশাতলী গ্রামে।

জানাগেছে, উপজেলার মনশাতলী গ্রামে রিয়াজ শরীফ ও শাহানাজ আক্তার দম্পতির গত ২ অক্টোবর বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে কোল জুড়ে আসে এক ফুটফুটে শিশু সন্তান। নাম রাখা হয় সানাউল শরীফ। শিশু সানাউল জন্ম নেয়ার পরেই ওই দম্পতির আনন্দের পরিবর্তে নেমে আসে অন্ধকার। জন্মগত ভাবেই শিশুটির কোপড়ে একটি টিউমার দেখা যায়। প্রথমে কেউ কিছু বুঝে উঠতে পারেনি। ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা টিউমার দেখে শিশুটির চিকিৎসায় অপরগতা প্রকাশ করে। তারা উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেয়। চিকিৎসকের পরামর্শ মোতাবেক ৮ অক্টোবর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা টিউমারটি অপারেশনের পরামর্শ দেয়। অকেন টাকা প্রয়োজন হবে বলে জানান ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা। টাকার অভাবে চিকিৎসা না করিয়ে দুইদিন পরে ওই হাসপাতাল থেকে বাড়ীতে ফিরে আসেন। গত দুই মাসে টিউমারটি বড় হয়ে তিন কেজি ওজনের আকার ধারন করেছে। টিউমারের উপরে দগদগে লালচে আকার ধারন করেছে। মরণ যন্ত্রনায় শিশুটি ছটফট করছে। ধুকে ধুকে শিশুটি মৃত্যুর প্রহর গুনছে। বাবা রিয়াজ শরীফ দিন মজুর। মা শাহানাজ আক্তার অন্যের বাড়ীকে ঝিয়ের কাজ করে। সহায় সম্ভব বলতে ওই দম্পতির বসত ভিটা ছাড়া আর কিছুই নেই। শিশুটিকে বাঁচাতে হলে দ্রæত উন্নত চিকিৎসা করানো প্রয়োজন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন শিশুটির চিকিৎসা করাতে প্রায় তিন লক্ষ টাকার দরকার। কিন্তু দরিদ্র বাবার পক্ষে এতো টাকা খরচ করে শিশুটির চিকিৎসা করানো সম্ভব নয়। চিকিৎসার টাকার জন্য ্ওই দম্পতি বিভিন্ন মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। তিন লক্ষ টাকা হলে দরিদ্র বাবার ওই শিশুটি বেচে যেতে পারে। তাই শিশুর বাঁচানোর জন্য বাবা ও মা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশের দানশীল ব্যক্তিদের কাছে সহযোগীতা চেয়েছেন। সহযোগীতা পাঠানোর বিকাশ নম্বর- (০১৭৭৫৩৬১৯৩৩)।

শিশু সানাউলের মা শাহনাজ বেগম কান্নাজনিত কন্ঠে বলেন, “মোর একটা মাত্র পোলা। পেলাডা টিউমার নিয়া জন্ম নেছে। মোর কোন টাহা নাই, কিদ্দা মুই মোর পোলাডারে ডাক্তার দ্যাহামু। আপনেরা মোর পেলাডারে বাঁচান। সারা দিন মোর পোলাডায় কান্দে। মুই সহ্য হরতে পারিনা।

শিশু সানাউলের বাবা রিয়াজ শরীফ বলেন, শিশুটি জন্মগতভাবেই টিউমারটি হয়। টিউমারটি দিন দিন বড় হচ্ছে। টাকার অভাবে ঢাকায় চিকিৎসা করাতে নিয়েও ফিরে এসেছি। চিকিৎসকরা বলেছে প্রায় তিন লক্ষ টাকার প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ দেশের দানশীল ব্যাক্তিদের কাছে সহযোগীতার কামনা করছি। আপনাদের সহযোগীতায় আমার ছেলের জীবন বেঁচে যেতে পারে।

Facebook Comments

পাঠকের মতামত: