বাংলাদেশ, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ৫ ঘন্টা আগে
সর্বশেষ
  ||> পেঁয়াজের পর এবার চালের বাজারে আগুন  ||> ৫৫ টাকার বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করলেই জরিমানা  ||> নোয়াখালীতে মার্কেটে ভয়াবহ আগুন  ||> ঝালকাঠিতে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি) ৪৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত  ||> নলছিটিতে গৃহবধুকে প্রাণনাশের হুমকি, থানায় জিডি  ||> ঝালকাঠিতে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় সভা !  ||> ঝালকাঠির রাজাপুরে অন্যের জমি দখল করে আজব বিদ্যালয় শিক্ষার্থী না থাকলেও এমপিও ভুক্ত স্কুলে শিক্ষক-কর্মচারী ৮  ||> ভূমি জরিপ: CS, RS, PS, BS সমন্ধে জেনে রাখুন  ||> ঝালকাঠি কুতুবনগর মাদ্রাসায় অপসংস্কৃতির মোকাবেলায় ইসলামী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের ঢল  ||> ঝালকাঠিতে সামাজিক সংগঠন ৭১'র চেতনার আলোচনা সভা !  ||> ছাত্রলীগ নেতা নাদিম মাহমুদ এর আয়োজনে আমির হোসেন আমুর ৭৮ তম জন্মদিন পালিত!  ||> নকল নে‌বেন, টাহা দে‌বেন-সেরেস্তাদার রেখা  ||> ট্রাকভর্তি ভারতীয় পেঁয়াজসহ দুইজন ধরা  ||> বাংলাদেশ 'ঘুষ' ঝুঁকিতে প্রথম  ||>   ||> ঝালকাঠির কৃতি সন্তান, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দক্ষিন বাংলার সিংহ পুরুষ আলহাজ্ব আমির হোসেন আমুর জন্মদিন আজ।  ||> ক্রাপ প্রোডাক্টস্ কম্পানি বেতন ভাতা না দিয়া চাকুরি থেকে বের করা দিয়ে নির্যাতন চালায় এমন অভিযোগ তুলেছেন ঝালকাঠি রাজাপুর উপজেলা মোঃ আমিনুল ইসলাম।  ||> আশিকুর রহমান-ইন্দ্রানী বনিকের বিয়ের পথে বাধা পরিবার ঝালকাঠিতে মামা বাড়ীতে আটকে রাখার অভিযোগে মামলা  ||> নলছিটিতে মাদ্রাসার ঘাটলা নির্মানে অনিয়ম, হস্তান্তরের আগেই ফাটল  ||> গাছ ব্যবসায়ী ভাঙলেন বৈদ্যুতিক খাম্বা, বিদ্যুতহীন নলছিটির তিন গ্রামের মানুষ

Dabanol 24


আজ ঘটনাবহুল ৭ই নভেম্বর

নভেম্বর ৭, ২০১৯ ১১:১০ পূর্বাহ্ণ

ঘটনাবহুল ৭ই নভেম্বর আজ। দীর্ঘ ৪৪ বছর আগের সেই দিনটিকে ঘিরে রয়েছে নানা বিতর্ক। দিনটিকে আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস, বিএনপি বিপ্লব ও সংহতি দিবস এবং জাসদ সিপাহি জনতার অভ্যুত্থান দিবস হিসেবে পালন করে।
পঁচাত্তরের ১৩রা নভেম্বর থেকে সেনানিবাসে টালমাটাল ঘটনার মধ্য দিয়েই ৭ই নভেম্বর দেশের ক্ষমতার মঞ্চে আবির্ভূত হন জেনারেল জিয়া।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর থেকেই সেনাবাহিনীতে দেখা দেয় বিশৃঙ্খলা। খন্দকার মোশতাক রাস্ট্রপতি হলেও বঙ্গভবনে অবস্থান নিয়ে ক্ষমতার কলকাঠি নাড়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিরা। সেই অবস্থা উত্তোরণে ১৩রা নভেম্বর ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে সামরিক অভিযানে গৃহবন্দী হন তখনকার সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমান।

খন্দকার মোশতাক ও বঙ্গবন্ধুর খুনিচক্রকে সরিয়ে ৬ই নভেম্বর রাষ্ট্রপতি ও প্রধান সামরিক আইন প্রশসকের দায়িত্ব দেয়া হয় বিচারপতি আবু সায়েমকে। সেনাপ্রধান হন খালেদ মোশাররফ। সামরিক বাহিনীতে চেইন অব কমান্ড ফিরিয়ে আনতে খালেদ মোশাররফের ওই অভিযান ছিল রক্তপাতহীন।

এরইমধ্যে, খালেদ মোশাররফকে ঠেকাতে কর্নেল তাহেরের সহায়তা চান জিয়াউর রহমান। তাতে সাড়া দিয়ে ৭ই নভেম্বর প্রথম প্রহরে আরেকটি অভ্যুত্থানের সূচনা করেন তাহের। তাহেরের সমর্থক সৈনিকদের পাশপাশি বঙ্গবন্ধুর খুনী ফারুকের ল্যান্সার বাহিনীর একটি দলও যায় তাকে মুক্ত করতে। জিয়াকে মুক্ত করে নিয়ে যাওয়া হয় বঙ্গবন্ধুর আরেক খুনি রশীদের দুই নম্বর আর্টিলারি রেজিমেন্টের দপ্তরে। এই অবস্থার মধ্যে সেনানিবাসে সৈনিকরা বেশ কজন মুক্তিযোদ্ধা সেনা কর্মকর্তাকে হত্যা করে।

৭ই নভেম্বর সকালে, জেনারেল জিয়ার সঙ্গে টেলিফোনে বিতণ্ডা হয় খালেদ মোশাররফের। এর কিছুক্ষণ পর একদল সৈনিক হত্যা করে মুক্তিযুদ্ধের দুই নম্বর সেক্টর কমান্ডার খালেদ মোশাররফ বীর উত্তম, কর্নেল হুদা বীর উত্তম ও কর্নেল হায়দার বীর বিক্রমকে।

সেনানিবাসের টালমাটাল অবস্থার মধ্যে ৭ই নভেম্বর ক্ষমতার কেন্দ্রে চলে আসেন জেনারেল জিয়া। এরপর, তিনি প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক, এক পর্যায়ে বিচারপতি সায়েমকে সরিয়ে রাষ্ট্রপতির পদ দখল এবং পরবর্তীতে বিএনপি গঠন করেন।

Facebook Comments

পাঠকের মতামত: