বাংলাদেশ, ৪ঠা জুন, ২০২০ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ৫ ঘন্টা আগে
সর্বশেষ
  ||> ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এর মায়ের মৃত্যুতে এমপি আমুর শোক প্রকাশ  ||> রাজাপুরে বিষখালি নদীতে পড়ে কলেজ ছাত্র নিখোঁজ  ||> ঝালকাঠি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এর মাতৃ বিয়োগ  ||> প্রধানমন্ত্রীর টেবিলে কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য  ||>   ||> ফের আসছে ছুুটির ঘোষণা, কঠোর হবে সরকার!  ||> করোনায় আরও ৩৭ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৬৯৫  ||> ঝালকাঠিতে আরো ৪ জনের করোনা শনাক্ত  ||> বরিশাল বিভাগে জ্বর শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়া তিনজন করোনা আক্রান্ত ছিলেন  ||> আগামীকাল আঘাত হানতে পারে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়  ||> নলছিটিতে মসজিদ নির্মাণের নামে জমি দখলের অভিযোগ  ||> ঝালকাঠি কারাগারে মাদক মামলার আসামির মৃত্যু  ||> দেশে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত ২৯১১, মৃত্যু ৩৭  ||> ঝালকাঠিতে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের ঝুঁকি রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে পথ প্রচার  ||> ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে লঞ্চ যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা  ||> জেলায় জেলায় রক্তযোদ্ধাদের সংগঠন প্রতিক্ষনের ভিন্নধর্মী প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন  ||>   ||> ঝালকাঠিতে নবজাতকের লাশ উদ্ধার  ||> রাজাপুরে গ্রামে এসে ঢাবি শিক্ষার্থীর মাস্তানিতে এলাকাবাসী আতংকিত  ||> PBRB-এর ১২ তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে পটুয়াখালী জেলার বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি

Dabanol 24


আজ ঘটনাবহুল ৭ই নভেম্বর

নভেম্বর ৭, ২০১৯ ১১:১০ পূর্বাহ্ণ

ঘটনাবহুল ৭ই নভেম্বর আজ। দীর্ঘ ৪৪ বছর আগের সেই দিনটিকে ঘিরে রয়েছে নানা বিতর্ক। দিনটিকে আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধা সৈনিক হত্যা দিবস, বিএনপি বিপ্লব ও সংহতি দিবস এবং জাসদ সিপাহি জনতার অভ্যুত্থান দিবস হিসেবে পালন করে।
পঁচাত্তরের ১৩রা নভেম্বর থেকে সেনানিবাসে টালমাটাল ঘটনার মধ্য দিয়েই ৭ই নভেম্বর দেশের ক্ষমতার মঞ্চে আবির্ভূত হন জেনারেল জিয়া।

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর থেকেই সেনাবাহিনীতে দেখা দেয় বিশৃঙ্খলা। খন্দকার মোশতাক রাস্ট্রপতি হলেও বঙ্গভবনে অবস্থান নিয়ে ক্ষমতার কলকাঠি নাড়ে বঙ্গবন্ধুর খুনিরা। সেই অবস্থা উত্তোরণে ১৩রা নভেম্বর ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফের নেতৃত্বে সামরিক অভিযানে গৃহবন্দী হন তখনকার সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমান।

খন্দকার মোশতাক ও বঙ্গবন্ধুর খুনিচক্রকে সরিয়ে ৬ই নভেম্বর রাষ্ট্রপতি ও প্রধান সামরিক আইন প্রশসকের দায়িত্ব দেয়া হয় বিচারপতি আবু সায়েমকে। সেনাপ্রধান হন খালেদ মোশাররফ। সামরিক বাহিনীতে চেইন অব কমান্ড ফিরিয়ে আনতে খালেদ মোশাররফের ওই অভিযান ছিল রক্তপাতহীন।

এরইমধ্যে, খালেদ মোশাররফকে ঠেকাতে কর্নেল তাহেরের সহায়তা চান জিয়াউর রহমান। তাতে সাড়া দিয়ে ৭ই নভেম্বর প্রথম প্রহরে আরেকটি অভ্যুত্থানের সূচনা করেন তাহের। তাহেরের সমর্থক সৈনিকদের পাশপাশি বঙ্গবন্ধুর খুনী ফারুকের ল্যান্সার বাহিনীর একটি দলও যায় তাকে মুক্ত করতে। জিয়াকে মুক্ত করে নিয়ে যাওয়া হয় বঙ্গবন্ধুর আরেক খুনি রশীদের দুই নম্বর আর্টিলারি রেজিমেন্টের দপ্তরে। এই অবস্থার মধ্যে সেনানিবাসে সৈনিকরা বেশ কজন মুক্তিযোদ্ধা সেনা কর্মকর্তাকে হত্যা করে।

৭ই নভেম্বর সকালে, জেনারেল জিয়ার সঙ্গে টেলিফোনে বিতণ্ডা হয় খালেদ মোশাররফের। এর কিছুক্ষণ পর একদল সৈনিক হত্যা করে মুক্তিযুদ্ধের দুই নম্বর সেক্টর কমান্ডার খালেদ মোশাররফ বীর উত্তম, কর্নেল হুদা বীর উত্তম ও কর্নেল হায়দার বীর বিক্রমকে।

সেনানিবাসের টালমাটাল অবস্থার মধ্যে ৭ই নভেম্বর ক্ষমতার কেন্দ্রে চলে আসেন জেনারেল জিয়া। এরপর, তিনি প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক, এক পর্যায়ে বিচারপতি সায়েমকে সরিয়ে রাষ্ট্রপতির পদ দখল এবং পরবর্তীতে বিএনপি গঠন করেন।

পাঠকের মতামত:

[wpdevart_facebook_comment facebook_app_id="322584541559673" curent_url="" order_type="social" title_text="" title_text_color="#000000" title_text_font_size="22" title_text_font_famely="monospace" title_text_position="left" width="100%" bg_color="#d4d4d4" animation_effect="random" count_of_comments="3" ]