বাংলাদেশ, ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ১২ ঘন্টা আগে
সর্বশেষ
  ||> ঘুমন্ত তুহিনকে কোলে করে নিয়ে আসেন বাবা, খুন করেন চাচা  ||> এমপিওভুক্তির তালিকায় প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন  ||> বন্ধুকে হত্যার দায়ে দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড  ||> আযান' শুনে ভাষণ থামালেন রাহুল গান্ধী  ||> বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে প্রাণ গেল দুইজনের  ||> ঝালকাঠির নলছিটিতে অাইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি, বেড়েই চলেছে অপরাধ কর্মকান্ড !  ||> ঝালকাঠিতে বিশ্ব সাদাছড়ি নিরাপত্তা দিবস পালিত  ||> ৫ বছরের এক শিশুর সঙ্গে পাষবিকতা, হত্যা করে গাছে লাশ ঝুলিয়ে রাখলো ঘাতকরা  ||> ফাহাদ হত্যার বিচার দ্রুত শেষ করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  ||> বৈধ অস্ত্র প্রদর্শন করলেও আইনি ব্যবস্থা  ||> ঘুষের টাকাসহ পাসপোর্ট অফিসের সহকারী আটক  ||> ঝালকাঠিতে ৪০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও তিন মণ ইলিশ উদ্ধার  ||> ঝালকাঠিতে আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সনাকের মানববন্ধন  ||> পিরোজপুর বাস মালিক সমিতির সদস্যকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা  ||> বিএমএসএফ’র ৫০ শাখা কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ ঘোষণা  ||> বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ  ||> বুড়োদের নেতৃত্বেই চলছে যুবকদের সংগঠন যুবলীগ  ||> মুক্তিযোদ্ধা বাবার কবরের ওপর ছেলের টয়লেট নির্মাণ!  ||> ভিসির অ্যাকাউন্টে আড়াই কোটি টাকা, ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত  ||> নলছিটিতে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা

Dabanol 24


কিশোরগঞ্জের ইটনায় পুলিশের উপ পরিদর্শকের হাতে চড় খেলেন ইউপি চেয়ারম্যান

মে ৩০, ২০১৯ ১:০১ পূর্বাহ্ণ

দাবানল অনলাইন ডেস্কঃ কিশোরগঞ্জের ইটনায় প্রতিবন্ধী মাছ ব্যবসায়ীর সঙ্গে অসদাচরণ করাকে কেন্দ্র করে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে। এ ঘটনাকে ঘিরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে থানার এক পুলিশ কর্মকর্তার হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

মাছ ব্যবসায়ীকে বকাঝকার প্রতিবাদ করায় ইটনা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. রুকনের বিরুদ্ধে সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম সোহাগকে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় উপস্থিত মাছ ব্যবসায়ীরা উত্তেজিত হয়ে ওই উপ- উপ-পরিদর্শককে ও মারধর করে বলে জানা গেছে। বুধবার বিকেলে ইটনা উপজেলা সদরের মাছ বাজারে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার জের ধরে পুলিশ সদস্যরা ইউপি চেয়ারম্যানের বাসায় গিয়ে জিনিসপত্র তছনছ ও ভাঙচুর করেছে বলে অভিযোগ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান। তবে চেয়ারম্যানকে মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগ অস্বীকার করেছে পুলিশ।

চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম সোহাগ জানান, বিকেলে তিনি বাজারে মাছ কিনতে গিয়ে দেখেন ইটনা থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো. রুকন মাছ কিনতে গিয়ে স্থানীয় প্রতিবন্ধী মাছ ব্যবসায়ী তনু মিয়াকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করছেন। জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমি পুলিশের এ কর্মকর্তার আচরণের প্রতিবাদ করি। কিন্তু তিনি উত্তেজিত হয়ে হঠাৎ সবার সামনে আমাকে থাপ্পড় মারেন। নিজেকে সামাল দিতে না পেরে আমিও তাকে থাপ্পড় মারি। পরে ব্যবসায়ীরা ওই পুলিশকে মারধর করে।’

তিনি বলেন, কিছুক্ষণ পর উপ-পরিদর্শক রুকনের নেতৃত্বে ১০-১২ জন পুলিশ আমার নয়াহাটির বাসা ভাঙচুর করাসহ ঘরের জিনিসপত্র তছনছ করে। তখন আমি উপজেলা পরিষদের দিকে ছিলাম।

এ বিষয়ে উপ-পরিদর্শক মো. রুকনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ইটনা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, এ ঘটনাটি বিভিন্ন মাধ্যমে আমি শুনেছি। কিন্তু কেউ আমার কাছে এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ নিয়ে আসেনি।

ইটনা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মুর্শেদ জামানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যানের সঙ্গে পুলিশ কর্মকর্তা রুকনের তর্কাতর্কি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ সময় চেয়ারম্যান ও তার লোকজন রুকনকে মারধর করে। তবে চেয়ারম্যানের বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ সঠিক নয়।

Facebook Comments

পাঠকের মতামত: