বাংলাদেশ, ১লা জুন, ২০২০ ইং। সর্বশেষ আপডেট: ৫ ঘন্টা আগে
সর্বশেষ
  ||> ঝালকাঠিতে করোনা ভাইরাস সংক্রমনের ঝুঁকি রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে পথ প্রচার  ||> ঝালকাঠি সদর উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে লঞ্চ যাত্রীদের শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা  ||> জেলায় জেলায় রক্তযোদ্ধাদের সংগঠন প্রতিক্ষনের ভিন্নধর্মী প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন  ||>   ||> ঝালকাঠিতে নবজাতকের লাশ উদ্ধার  ||> রাজাপুরে গ্রামে এসে ঢাবি শিক্ষার্থীর মাস্তানিতে এলাকাবাসী আতংকিত  ||> PBRB-এর ১২ তম বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে পটুয়াখালী জেলার বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি  ||> করোনা তহবিলে ঈদ সালামির টাকা দান করলেন জুই  ||> মাস্ক না পরে বের হলেই ছয় মাসের কারাদণ্ড বা লাখ টাকা জরিমানা  ||>   ||> হাতীবান্ধায় পরিক্ষায় ফেল করায় আত্মাহত্যা ১ ছাত্রীর  ||> খুলনা রেঞ্জের ১০ টি জেলার সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাসিক অপরাধ সভা অনুষ্ঠিত।  ||>   ||> অনলাইন পত্রিকাগুলো করোনাকালে দায়িত্বশীল ভুমিকা রাখছে  ||> ঝালকাঠিতে ছাগলে গাছ খাওয়াকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধকে লাঞ্ছিত, যুবককে গণধোলাই  ||>   ||> ঝালকাঠিতে উপজেলা আওয়ামী লীগ অফিস কেয়ারটেকার সন্ত্রাসি হামলার শিকার  ||> রেকর্ড ৪০ জনের মৃত্যু করোনায়, নতুন শনাক্ত ২৫৪৫  ||> কাল থেকে এসএসসির ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন শুরু  ||> এসএসসি-সমমানে পাসের হার ৮২ দশমিক ৮৭ শতাংশ

Dabanol 24


নিরস্ত্র বাঙালিদের ওপর  হানাদার পাকিস্তানি বাহিনী নির্মমতার সেই ভয়াল ভয়ঙ্কর কালরাত

মার্চ ২৫, ২০১৮ ২:১৭ অপরাহ্ণ

মো:নজরুল ইসলাম: আজ ২৫ই মার্চ। নিরস্ত্র বাঙালিদের ওপর  হানাদার পাকিস্তানি বাহিনীর বর্বর গণহত্যার ভয়াবহ ইতিহাসের এক কালো অধ্যায়। ২৫ মার্চ সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ধানমণ্ডির বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে দেশব্যাপী সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের প্রতিবাদে যখন ২৭ মার্চ হরতাল পালনের ঘোষণা দেওয়া হচ্ছিল, তখনও জানা ছিল না কী ভয়ঙ্কর হত্যাযজ্ঞের পরিকল্পনা করে সন্ধ্যা সোয়া সাতটায় প্রেসিডেন্ট ইয়াহিয়ার বিমান ঢাকা ত্যাগ করেছে।

 

রাজধানী ঢাকায় নিরীহ মানুষেরা যখন ঘরে ফিরেছে, তখনই তাদের হত্যার জন্য পথে নেমে আসে পাকিস্তান আর্মির ট্যাংক। ২৫ মার্চ রাতে ‘অপারেশন সার্চলাইট’র মূল লক্ষ্য ছিল— ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রী- শিক্ষক, রাজারবাগ পুলিশ লাইন এবং পিলখানায় ইপিআরের বাঙালি জওয়ানেরা। পাশাপাশি টেলিফোন, টেলিভিশন, রেডিও, টেলিগ্রাফসহ বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক যোগাযোগ ধ্বংস করে দেওয়া, যাতে ঢাকাকে শতভাগ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে নিয়ে আসা যায়।
সেদিন রাত সাড়ে ১১টায় ক্যান্টনমেন্ট থেকে বের হয় পাকিস্তানি সেনাবাহিনী। তারা প্রথমে ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইন এবং এরপর একে একে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ এর চারপাশ, ধানমন্ডি, পিলখানায় পূর্ব পাকিস্তান রাইফেলসের সদর দফতরসহ রাজধানীর সর্বত্র নৃশংস হত্যাযজ্ঞ চালায়। ঢাকার বাইরে হত্যাযজ্ঞ চালায় চট্টগ্রামসহ দেশের কয়েকটি বড় শহরেও। পাকিস্তানি হায়েনাদের কাছ থেকে রক্ষা পায়নি ড. গোবিন্দ চন্দ্র দেব ও জ্যোতির্ময় গুহ ঠাকুরতা, অধ্যাপক সন্তোষ ভট্টাচার্য, ড. মনিরুজ্জামানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের ৯ জন শিক্ষক। নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয় তাদের। ঢাবির জগন্নাথ হলে চলে নৃশংসতম হত্যার সবচেয়ে বড় ঘটনাটি।
              
১৯৭০ এর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে বাঙালিরা আশা করেছিল, ক্ষমতার পালাবদল হবে এবং আওয়ামী লীগ ছয় দফা অনুসারে সরকার গঠন করবে। ২৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৭১-এ তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ও সেনাপ্রধান ইয়াহিয়া খান পিপিপি (পাকিস্তান পিপলস পার্টি) এর জুলফিকার আলী ভুট্টোর প্ররোচনা ও চাপে প্রাদেশিক পরিষদের  কার্যাবলী মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করলে বুঝতে সমস্যা হয় না, এবার প্রতিরোধের সময় এসেছে। এরই মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭ মার্চ রেসকোর্স ময়দানের ভাষণে স্বাধীনতার ডাক দেন। বাংলার মানুষ প্রতিরোধের প্রস্তুতি নিতে ‍শুরু করলে তাদের মানসিক সামর্থ্য গুড়িয়ে দিতে পরিকল্পনা হয় ২৫ মার্চের হত্যাযজ্ঞের।
আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুানলের প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘২৫ মার্চ যে ভয়াবহতা ঘটিয়েছিল পাকিস্তানি বাহিনী, তা বাঙালিদের মনোবল গুড়িয়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু বাংলার মানুষ তখন জানে যে, কোনও আক্রমণেই তাদের আর পিছু হটানো যাবে না। রাতের অন্ধকারে ঢাকা রাস্তায় যে হত্যাযজ্ঞ চালানো হয়, সবার মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে বাঙালিদের প্রতিহত করার যে পরিকল্পনা করা হয়, তা সফল হয়নি। সেটি বুঝতে বেশি সময় লাগেনি পাকিস্তানি বাহিনীর। বরং তাদের এই নৃশংসতার কারণে আরও  সুসংগঠিত হয়ে শাসকদের প্রতিহত করার কাজটি আরও ত্বরান্বিত করেছে।’
২৫ মার্চ কালরাত-এর শহীদদের স্মরণে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আজ  নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে তাঁদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে। মধ্যরাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের শহীদ বেদিতে মোমবাতি প্রজ্বালন করবে জগন্নাথ হল পরিবার। এর আগে রাত ১১টায় হলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মশাল মিছিল হবে। এদিকে একমিনিট আলো নিভিয়ে ২৫ মার্চের ভয়াল কালরাত পালনের ঘোষণা দিয়েছে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়।  রাত ৯টা থেকে ৯টা ১ মিনিট এই কর্মসূচি পালন করা হবে। জরুরি সেবা প্রতিষ্ঠান ও কেপিআই এই আয়োজনের বাইরে থাকবে। এছাড়া, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। ভয়াল ২৫ মার্চ উপলক্ষে সরকারি ও বেসরকারিভাবে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে এ গণহত্যা দিবসে।
(তথ্য সুত্র বাংলাদেশের ইতিহাস)

পাঠকের মতামত:

[wpdevart_facebook_comment facebook_app_id="322584541559673" curent_url="" order_type="social" title_text="" title_text_color="#000000" title_text_font_size="22" title_text_font_famely="monospace" title_text_position="left" width="100%" bg_color="#d4d4d4" animation_effect="random" count_of_comments="3" ]